গহীনের ঢেউ

কোন কাজ হাতে না থাকায় ছেলেটি অফিস হতে তারাতারি বের হয়ে আসে। যেন অনেক কাজ বাইরে পড়ে আছে এমন তারাহুরা। মাস শেষ, বুকপকেটের অবস্থাও শোচনীয় তবু ছেলেটি উদ্দশ্যহীন ভাবে ঘুরতে রিক্সায় বসে পড়ে। পান্থপথ হাতিরপুল কাটাঁবন পার হয়ে রিক্সা যখন নীলক্ষেত মোড় পার হয় ছেলেটি তখন রিক্সাওয়ালাকে নিউমার্কেটের দিকে যেতে বলে। নিউমার্কেটে ছেলেটির এলাকার এক ছোটভাই’র সাথে দেখা করে হেটে আবার নীলক্ষেতের দিকে আসে। ছেলে ভেবেছিল

মৃত্যু অনিবার্য তবু মরতে চায় না কেউ

মাহবুবুল আলম//

"৮ নাম্বার বাস"

“৮ নাম্বার বাস” নিয়ে লিখবো এরকম একটা ইচ্ছে বহুদিন ধরেই পুষে আসছি। লেখা হয়ে উঠেনি। কারণ নেই, স্রেফ হয়নি।

জামায়াত-শিবির এখন শুধু রাজনৈতিকভাবেই নয় সামাজিকভাবেও একঘরে হয়ে পড়েছে

মাহবুবুল আলম//

আর নয় বিকৃতি ৷ এবার থামুন

'ক' আর 'খ' এর উচ্চারন কেউ কখনো বই থেকে শিখতে পারেনা ৷ যতক্ষন না তাকে হাতে কলমে এই উচ্চারন শিখানো হবে ততক্ষন সে 'বাবা' আর 'ভ্যা ভ্যা' এর তফাৎ বুঝতে পারবেনা ৷
আমরা যেই জিনিসটা চোখ কান দিয়ে দেখি শুনি সেই জিনসটা সবচেয়ে বেশি মনে থাকে ৷

মারমা সমাজের বহি: মৃত্যু ব্যক্তির দেহ সংস্করণ নিয়ে কিছু কথা

প্রথা বলতে আমরা বুঝি একটি আদি নিয়ম বা রীতি। যা আমাদের পূর্বপুরুষরা পালন করেছেন বা এখনো আমরা তা পালন করছি। যা আসলের রাষ্ট্রীয় আইনে বা ধর্মীয় নিয়মের এর কোন স্থান নেই। শুধু মানুষ পূর্বপুরুষদের ধারা বজায় রাখতে গিয়ে জেনে শুনে বা অজ্ঞাত ভাবে তা পালন করছে। সত্যিকার অর্থে , বেশির ভাগ আদি প্রথাগত নিয়ম বলতে তখনকাল এক শ্রেণীর শাসক গোষ্ঠীর গরীব জনসাধারনকে বোকা বানিয়ে তাদের নিজ হীনস্বার্থ অর্

মামলা জট নিরসনে প্রয়োজন নিয়মতান্ত্রিক সমন্বয়!

বর্তমানে বাংলাদেশে বিদ্যমান ফৌজদারি বিচার ব্যবস্থায় দেশের বেশীভাগ জনগণের সহজে প্রবেশগম্যতা নেই বললেই চলে। নৃতাত্ত্বিক সংখ্যালঘু, প্রতিবন্ধি সহ দরিদ্র নারী ও শিশুরাই বিশেষত সময়মত ন্যায় বিচার প্রাপ্তিতে বেশীরকম সমস্যার সম্মুখীন হয়ে থাকে। বিচার নিষ্পত্তির ধীরগতি মূলত বিচার ব্যবস্থায় দীর্ঘসূত্রিতার সৃষ্টি করে। অন্যান্য কারণের সাথে মামলা নিষ্পত্তির জটিল পদ্ধতি এবং কার্যকর কেস ম্যানেজমেন্টের অভাবে সমগ্র

আলো (প্রথম পর্ব)।

একাত্তরের অণুগল্প: ষ্ট্রেচার

আজ থেকে নতুন একটা সিরিজ শুরু করলাম।
পোস্টের সাইজ এবং টাইপ: ফেসবুক স্ট্যাটাস।
টার্গেট পাঠক: 'আই হেইট পলিটিক্স' বা 'ইয়ো ইয়ো জেনারেশন।
পড়তে সময় লাগবে খুবই কম। কিন্তু পড়তে পড়তে চোখে ভেসে উঠবে ছবি। মনে থাকবে।

আধুনিক কবিতা সম্পর্কে দু’টি কথা

যারা আধুনিক ধারার কবিতা ছাড়া কিছুই বোঝেন না তাঁদের মধ্যে এক জাতীয় ঊন্নাসিকতা কাজ করে। তাঁদের মতের প্রতি শ্রদ্ধা রেখেই দু’টি কথা বলতে চাই;

বাতাসের রাহে দিয়ে দিও আমায়...

রেহানা জব্বারি একজন ইরানি ইন্টেরিয়র ডিজাইনার। তাকে গত ৮ বছর আগে গ্রেফতার করা হয় নিজের ক্লায়েন্টকে তার ফ্ল্যাটেই খুনের অভিযোগে। খুনের সময় রেহানা সেই ফ্ল্যাটের ইন্টেরিয়রের দায়িত্বে ছিলো। ৩য় এক ব্যক্তির উপস্থিতিও হত্যাকালে সেখানে প্রমাণিত হয়। রেহানার মতে সে তার ট্যাক্সি চালক। আর নিহতের পরিবারের মতে সে ছিলো রেহানার বয়ফ্রেন্ড। রেহানার অভিযোগ ছিলো- তার ক্লায়েন্ট তাকে ধর্ষণের চেষ্টা করায় গাড়ি চালক বাঁধা

বদ এখন নাগরিকের ব্লগার

ভুলে গেছিলাম বদ নাগরিকে ডুখছে আমি আমার নিজেকে একেবারেই বুঝি না। কিন্তু, এতোটুকু বলতে পারি যে, আমি খুব বেশি পরিমাণে অগোছালো। আমার জীবন টাও তেমনি অগোছালো। আমার মতে, জীবনে নিয়ম বলতে কিছু নাই। আর আরেকটা জিনিস, যেটা সবাই আমার সম্পর্কে বলে তা হলো, আমার মাথায় সিরিয়াস সমস্যা আছে। আমি জানি না এটা সত্যি কিনা, কিন্তু নিজেকে আমি এভাবেই খুব ভালোবাসি।

মরন

উত্তেজনায়..আকাশ কাঁপে..মেঘের কোলে
রহস্যরা..রহস্য ময় ..দোলনা দোলে !

বাঘ যে কখন ..এসেছিল ..এ জঙ্গলে
বন্দুকও নেই..বল্লমও নেই..ধরব জালে!

লুপ্ত প্রতাপ..ঘুরছে ফিরছে ..উত্তুরে মেঘ
ও দেশটার ..স্বজন নেই ..মারছে খেপে!

জমিন আমার ..জমিন তোমার ..নেই কোথাও
নিজের বাসে..বাঘের বাসা ..তফাৎএ যাও!

আমার বাড়ি ..কোথায় বলতে ..লজ্জাপাই
গরব আমার ..ধুলোয় লুটায়..ভাবছি তাই!

জীবনের প্রাথমিক শিক্ষাসফর-২য় পর্ব

মাদরাসায় ক্লাস শুরু হওয়ার পর থেকে নিজেকে বড় মানুষ মনে হতে লাগল। নিজের কাজ নিজে করি। নিজে গোসল করি। নিজের বিছানা নিজে করি, ঘুম থেকে ওঠে মশারি উঠাই। আর পড়ালেখা তো আগে থেকেই করি। খাবার-দাবার বাসা থেকে আসত । তিন বেলাই। আব্বু সকালে অফিসে যাওয়ার সময় নাস্তা আর দুপুরের খাবার হটপটে করে নিয়ে আসত । আর সন্ধ্যায় আম্মু খাবার নিয়ে আসত । বাসা থেকে মাদরাসা প্রায় দুই কিঃমিঃ। আব্বু-আম্মু প্রতিদিন আমার জন্য এতদূর থেক

November 2014
শনিবাররবিবারসোমবারমঙ্গলবারবুধবারবৃহঃবারশুক্রবার
1234567
891011121314
15161718192021
22232425262728
293012345